রেকর্ড গড়ে ১৬ বলে ৮৬ রান লুইসের ব্যাট থেকে

সিপিএলের ১৭তম ম্যাচে লুইস ঝড়ে ত্রিণবাগো নাইট রাইডার্সকে হারিয়েছে সেন্ট কিটস এন্ড নেভিস। ১১ ছক্কায় লুইসের ঝড়ো শতকে নাইটদের ৮ উইকেটে উড়িয়ে দিয়েছে সেন্ট কিটস। এ জয়ে ব্রাভোদের টপকে শীর্ষেও উঠেছে দলটি।

এদিন সেন্ট কিটসে টস জিতে বোলিংয়ে নেমে ত্রিনবাগোকে ১৫৯ রানে আটকে রাখে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস। ত্রিবাগোর হয়ে তিনে নেমে কলিন মানরো করেন ৩৪ বলে ৪৭, সাতে নেমে সুনিল নারাইন ১৮ বলে অপরাজিত ৩৩।

রান তাড়ায় লুইস ও ক্রিস গেইলের ঝড়ো সূচনা অনেকটাই গড়ে দেয় ম্যাচের ভাগ্য। পাওয়ারপ্লেতে ৬৭ রানের জুটির পর ১৮ বলে ৩৫ রান করে ফেরেন গেইল৷ ৫ ওভার শেষে গেইলের রান যখন ১৫ বলে ২৫, লুইসের তখন ১৫ বলে ১৭।

ষষ্ঠ ওভারে পেসার আলি খানের বলে চার-ছক্কা মেরে হাত খোলেন লুইস। ওই ওভারে একটি করে ছক্কা-চার মেরে আউটও হয়ে যান গেইল।

তিনে নামা ডেভন টমাস ১ রানেই বিদায় নেন। সেই ওভারেই বদলাতে পারতো ম্যাচের চিত্র৷ যদিনা কাইরন পোলার্ডের ওই ওভারেই লুইস ২৯ রানে আকিল হোসেনের হাতে না পেতে।

আর জীবন পেয়ে আরো ভয়ংকর হয়ে উঠেন লুইস। ২৬ বলে ফিফটির পর অ্যান্ডারসন ফিলিপকে ছক্কা মেরেই সেঞ্চুরিতে পা রাখেন ৫১ বলে।

৫ চার ও ১১ ছক্কায় লুইস অপরাজিত থাকেন ৫১ বলে ১০২ রান করে। সিপিএলের এক ইনিংসে লুইস গড়েন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ছক্কা হাঁকানোর রেকর্ড।

লুইসের ব্যাট থেকে আসা চার ছক্কায় মাত্র ১৬ বলেই আসে ৮৬ রান আর বাকি ১৬ রান আসে সিঙ্গেল ও ডাবল থেকে।

৮ উইকেটের জয়ের পথে তৃতীয় উইকেটে রবি বোপারার সঙ্গে ৪৩ বলে ৮৫ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন তিনি। অবিশ্বাস্যভাবে, সেখানে বোপারার অবদান কেবল ১৩ বলে ৭ রান! লুইস জুটিতে করেন ৩০ বলে ৭০।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *