এই তরুণ ক্রিকেটারকে ভবিষ্যতের হার্দিক হিসেবে তৈরি করার পরামর্শ দিলেন লক্ষ্মণ

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজের জব্য ১৬ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে ভারত। এই মাসের শেষেই নিউজিল্যান্ড ভারতে আসছে। এই সিরিজে দলে বেশ কিছু পরিবর্তন করা হয়েছে।

যেমন বিরাট কোহলি, জসপ্রীত বুমরাহ, মহম্মদ শামিদের বিশ্রাম দেওয়া দেওয়া হয়েছে, তেমনই বেশ কিছু তরুণকে সুযোগ দেওয়া হয়েছে। এতে খুশি ভিভিএস লক্ষ্মণও।

তিনি এই পরিবর্তনগুলোকে যেমন স্বাগত জানিয়েছেন, তেমনই আইপিএলের ভাল যাঁরা পারফর্ম করেছেন, তাঁদের সুযোগ করে দেওয়ার সিদ্ধান্তকেও বাহবা জানিয়েছেন লক্ষ্মণ। হর্ষাল প্যাটেল, বেঙ্কটেশ আইয়ার, আবেশ খানরা প্রথমবার ভারতীয় দলে ডাক পেয়েছেন। অন্যদিকে রুতুরাজ গায়কওয়ারকেও টিমে রাখা হয়েছে।

রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের হয়ে সবচেয়ে বেশি ৩২টি উইকেট নিয়েছেন হর্ষল। আইপিএলের এক সংস্করণে যৌথ সর্বোচ্চ। আবেশ খান আবার ২৪টি উইকেট নিয়ে এই তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন।

পরের বার অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলা হবে। এবং সেখানের পিচে বাউন্স থাকবে। যে কারণে হর্ষল এবং আবেশকে আগে থেকে তৈরি করে রাখাটা গুরুত্বপূর্ণ বলে দাবি লক্ষ্মণের।

স্টার স্পোর্টসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে লক্ষ্মণ বলেছেন, ‘আমি মনে হয়েছে, আইপিএলে ভালো যারা খেলেছে, তাদের বিসিসিআই পুরস্কৃত করেছে। অস্ট্রেলিয়ায় এক বছরের মধ্যে যে বিশ্বকাপ হতে চলেছে, সে কথা মাথায় রেখে এগিয়ে যাওয়াই উচিত। আমি মনে করি, এটি একটি দুর্দান্ত স্কোয়াড। শুধু ব্যাটিং বলে নয়, ফাস্ট-বোলিং বিভাগও বেশ ভাল। সেখানে হর্ষাল প্যাটেল আছেন, যিনি ডেথ ওভারে দুর্দান্ত। আবেশ খানের এক্সপ্রেস পেস রয়েছে।’

শুধু বোলারদের ক্ষেত্রে নয়। ব্যাটিং বিভাগ নিয়েও উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন লক্ষ্মণ। বিশেষ করে বেঙ্কটেশ আইয়ারকে এখন থেকেই হার্দিক পাণ্ডিয়ার জায়গায় তৈরি করতে বলছেন লক্ষ্মণ। আইয়ার কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে আইপিএলের দ্বিতীয় পর্বে ওপেন করেছিলেন। এবং ১০ ম্যাচ খেলে ৩৭০ রান করেছিলেন।

২৬ বছর বয়সী বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যানকে নিয়ে লক্ষ্মণ বলেছেন, ভারতের যেহেতু অনেক ওপেনার রয়েছে, তাই হার্দিকের জায়গায় অল রাউন্ডার হিসেবে ভারত আইয়ারকে তৈরি করতে পারে। মিডল অর্ডারে ব্যাট করার পাশাপাশি বলটাও করে দিতে পারবে।

লক্ষ্মণ বলেছেন, ‘আমি বেঙ্কটেশ আইয়ারের মতো কাউকে চাই, যে অন্য পজিশনে ব্যাট করতে পারবে। ভারতের এই স্কোয়াডে পাঁচ জন ওপেনার রয়েছে। ইশান কিষান, কেএল রাহুল এবং রোহিত শর্মারা তো আগে থেকেই রয়েছে। সে কারণে বেঙ্কটেশ আইয়ার জন্য টপ অর্ডার না খেলে, মিডল অর্ডারে খেলুক।’

লক্ষ্মণ আরও বলেছেন, ‘ওকে ৫ বা ৬ ব্যাট করানো যেতে পারে। সেই সঙ্গে বোলিংও করুক। সম্ভবত কয়েক ওভার বা তার বেশিও বল করতে দেওয়া হোক ওকে। এই ভাবেই ওকে তৈরি করা হোক। হার্দিক পান্ডিয়ার ব্যাক আপ হতে পারে বেঙ্কটেশ। আপনি ওকে একজন ইউটিলিটি অলরাউন্ডার হিসেবে গড়ে তোলা যায়।’

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *