আইপিএলের ১৪ বছরের ইতিহাসে সর্বোচ্চ গতির বোলিং করে বিশ্বকে অবাক করলেন উমরান মালিক

সানরাইজার্স হায়দরাবাদ এবারের আইপিএলের নকআউটে যাওয়ার দৌড় থেকে বাদ পড়েছে আগেই। তারকাসমৃদ্ধ দল নিয়েও দুর্ভাগা দলটি টানা দুই হারের পর বুধবার (৬ অক্টোবর) রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে জিতেছে ৪ রানে।

শুরুতে ব্যাট করে ১৪১ রান তুলে নির্ধারিত ২০ ওভারে বেঙ্গালুরুকে ১৩৭ রানের বেশি করতে দেয়নি কেইন উইলিয়ামসনের দল।

সানরাইজ হায়দ্রাবাদের হয়ে গত ম্যাচে বিশ্ব ক্রিকেটে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিলেন এক একুশ বছরের যুবক। ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে আইপিএলের অভিষেক ম্যাচে ১৫০ কিলোমিটার গতিতে বল করেছিলেন ওমরান মালিক।

বুধবার সানরাইজের জয়ের ম্যাচে গত ম্যাচের থেকে আরও বেশী শক্তি নিয়ে গর্জে উঠলেন সেই তরুণ পেসার। জম্বু কাশ্মীরের ক্রিকেটার হিসেবে প্রথম আইপিএলে নিলামে উঠেছিলেন ওমরান মালিক।

খুব অল্প সংখ্যক অর্থের বিনিময়ে সানরাইজ হায়দ্রাবাদ নিজেদের দলে অন্তর্ভুক্ত করেন এই স্প্রিট স্টারকে। আর প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমে খবরের শিরোনামে এলেন ২১ বছরের এই তরুণ ক্রিকেটার। ধারাবাহিকভাবে ১৪৫+ বল করতে সক্ষম এই ক্রিকেটার।

সেই ধারাবাহিকতায় বেঙ্গালুরের সাথে করে ফেললেন অবিশ্বাস্য রেকর্ড। আইপিএলের চলিত সিজনে সর্বোচ্চ গতিতে বোলিং করে তাক লাগালেন তিনি।

১৫৩ কি.মি বেগে বোলিং করে আইপিএলের ১৪ বছরের ইতিহাসে ভারতীয় বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ গতিময় বোলারের খাতায় নাম লেখালেন তিনি। এর আগে ভারতীয় বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ১৫২.৮২ কি.মি বেগে বোলিং করে ছিলেন নবদীপ সায়নী।

উমরান মালিকের ১৫৩ কিমি বেগের বোলিং দেখে অবকা হয়েছে কোহলি নিজেই। ম্যাচ শেষে তিনি উমরান মালিকের ব্যপক প্রসংশা করেন।

তিনি বলেন, “প্রতি বছরই আইপিএল নতুন প্রতিভা বের করে নিয়ে আসে। দেখে খুব ভাল লাগছে যে সে ১৫০ কিমি গতিতে বোলিং করতে পারে। এখান থেকেই ব্যক্তিভাবে অগ্রগতি বোঝাটা গুরুত্বপূর্ণ।

ফাস্ট বোলারদের শক্তিশালী হওয়া সবসময় ভারতীয় ক্রিকেটের জন্য একটি ভাল লক্ষণ। যখনই আপনি এইরকম প্রতিভা দেখবেন, আপনি তাদের দিকে আপনার চোখ রাখবেন এবং আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে যে সে আইপিএলে যা করেছে তা যেন আরও ভাল করতে পারে।”

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *